দ্বন্দ্ব সমাস : এবং,ও,আর (৩টি অব্যয়) থাকলে দ্বন্দ্ব সমাস -
কালি ও কলম = কালি-কলম
মাতা এবং পিতা =  মাতাপিতা
লতা আর পাতা = লতাপাতা
অলুক দ্বন্দ্ব :ব্যাসবাক্যে  ে , ো থাকলে অলুক দ্বন্দ্ব -
দুধে ও ভাতে = দুধেভাতে
লোভে ও পাপে =  লোভেপাপে
দ্বিগু সমাস : ব্যসবাক্যে "সমাহার" থাকলে দ্বিগু সমাস  -
নঞ তৎপুষ : শুরুতে না , নেই, নাই, নয় থাকলে নঞ তৎপুষ - নয় উচিৎ = অনুচিত
নয় আশ্রিত = অনাশ্রিত 

উপপদ তৎপুষ : শেষে " যে, যা, যিনি " থাকলে উপপদ তৎপুরুষ সমাস -
জলে চরে যে = জলচর

অলুক তৎপুরুষ : পরিবর্তন না হলে অলুক তৎপুষ -
চোখ দিয়ে দেখা = চোখে দেখা
সোনার তরী = সোনারতরী

কর্মধারায় সমাস :ব্যসবাক্যের মাঝে "যে" থাকলে কর্মধারায় সমাস।
মধ্যপদলোপী কর্মধারায় : মাঝে বিভক্তি লোপ পেলে মধ্যপদলোপী কর্মধারায় সমাস।
উপমান কর্মধারায় : মাঝে "ন্যায়" থাকলে উপমান কর্মধারায় সমাস।
উপমিত কর্মধারায় : শেষে ন্যায়" থাকলে উপমিত কর্মধারায় সমাস।
রুপক কর্মধারায় : মাঝে "রুপ" থাকলে রুপক কর্মধারায়
বহুব্রীহি সমাস : শেষে "যার" থাকলে বহুব্রীহি সমাস।
ব্যতিহার বহুব্রীহি : হাতাহাতি, কানাকানি ইত্যাদি ব্যতিহার বহুব্রীহি।
অব্যয়ীভাব সমাস : পর্যন্ত, অভাব, সমীপে, অতিক্রম, গমন,সদৃশ ইত্যাদি অব্যয়ীভাব সমাস।
প্রাদি সামাস : প্র, পরা, প্রতি, অনু থাকলে প্রাদি সমাস।
নিত্য সমাস : "অন্য" দিয়ে সমাস হলে নিত্য সমাস।
কবিতা:
এবং,ও,আর মিলে যদি হয় দ্বন্দ্ব,
সমাহারে দ্বিগু হলে নয় সেটা মন্দ।
যে যা তা যিনি তিনি কর্মধারায়,
যে যার শেষে থাকলে বহুব্রীহি কয়।
অব্যয়ের অর্থ প্রাধান্য পেলে "অব্যয়ী"
মেলে, বিভক্তি লোপ পেলে তাকে তৎপুরুষ বলে।